Important

  • Rainbow Kindergarten & High School – read more

Welcome To Rainbow School

সৃজনশীল মেধা বিকাশে অঙ্গীকারাবদ্ধ


আস্সালামু আলাইকুম ওয়ারাহমাতুল্লাহ।
রেইনবো কিন্ডারগার্টেন এন্ড হাই স্কুল এর পক্ষ থেকে জানাই স্বাগতম ও শুভেচ্ছা। পৃথিবীর সাথে তাল মিলিয়ে দেশ যখন এগিয়ে যাচ্ছে আমরা কেন তাহলে অন্যদের চেয়ে পিছিয়ে থাকবো ?  আপনারা জেনে আনন্দিত হবেন যে, বাংলা একাডেমী কর্তৃক নির্ধারিত শুদ্ধ উচ্চারণের অঙ্গীকার নিয়ে আমরা সৃজনশীল শিক্ষা দানের উদ্দেশ্যে  যুগোপযোগী ও আধুনিক স্কুল প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে একটি যুগান্তকারী উদ্যোগ গ্রহণ করেছি। 

ঢাকা মহানগরীর প্রতিটি এলাকায় অসংখ্য স্কুল গড়ে উঠেছে। কিন্তু সত্যিকার অর্থে ভালো স্কুলের সংখ্যা খুবই কম। সেক্ষেত্রে আমাদের  প্রতিষ্ঠানটি এ অভাব পূরণে একটি ব্যতিক্রমী প্রচেষ্ঠা। ভবিষ্যত প্রজন্মকে তাদের সুপ্ত প্রতিভার যথাযথ বিকাশ ঘটিয়ে শারীরিক, মানসিক, চারিত্রিক, সামাজিক ও ধর্মীয় মূল্যবোধে উদ্ধুদ্ধ করে তোলার লক্ষ্যে সুদূর প্রসারী পরিকল্পনা হাতে নিয়েছি। 

মেধাবী শিক্ষকগণের উচ্ছল উদ্দীপনায় সুশিক্ষার এক অপূর্ব পরিবেশ গড়ে তোলা হয়েছে। শিক্ষার্থীরা যাতে করে তাদের প্রতিভা বিকাশের উপযুক্ত ক্ষেত্র খুঁজে পায়। সাধারণ শিক্ষার পাশাপাশি ব্যক্তিগত জীবনে ধর্মীয় শিক্ষার অনুশাসন, মানবিক মূল্যবোধ ও কমপিউটার শিক্ষা কর্মসূচীর বাস্তবায়নের মাধ্যমে বিজ্ঞান মনস্ক দৃষ্টিভঙ্গি অর্জনের মধ্য দিয়ে প্রকৃত শিক্ষা লাভের পথ নির্দেশ করাই এই প্রতিষ্ঠানের মূল লক্ষ্য। 

বাংলা ভাষার যথাযথ অনুশীলনের পাশাপাশি ইংরেজি ভাষাকে দ্বিতীয় ভাষার মর্যাদা দিয়ে উচ্চ শিক্ষার ক্ষেত্রে ভাষাগত দূর্বলতা নির্মূল করার দ্বার উন্মুক্ত করবে আশা করি। সাথে সাথে চিত্রাঙ্কন, সাহিত্য চর্চা, সাংস্কৃতিক কর্মসূচী, খেলাধুলা, শিক্ষা সফর তাদের মেধা বিকাশে ইতিবাচক সুফল বয়ে আনবে।

আমরা আশা করি, অভিভাবক ও ছাত্র-ছাত্রীদের যুগোপযোগী চাহিদা মেটাতে এবং তাদের সুশিক্ষা লাভের সকল সুযোগ সম্প্রসারণ করতে সক্ষম হব ইন্শাল্লাহ। 

 

Why Choose Rainbow School ?

প্রাক-প্রাথমিক স্তর থেকেই বর্ণ এবং শব্দের উচ্চারণের প্রতি বিশেষ নজর দেওয়া হয়, যাতে শিশুরা জড়তামুক্ত হয়ে স্পষ্ট উচ্চারণ করতে পারে। শ্রেণি কক্ষে প্রয়োজন অনুসারে আদর্শ সরব পাঠ তথা আবৃত্তির রেকর্ড বাজিয়ে শোনানো হয়, যাতে দাঁড়ি, কমা, সেমিকোলন, প্রশ্নবোধক চিহ্ন, আশ্চর্যবোধক চিহ্ন ইত্যাদির ব্যবহারের প্রতি দৃষ্টি রেখে সঠিক পঠন-অভ্যাস গড়ে উঠে। শ্রেণি পাঠকে ফলপ্রসূ ও সফল করার লক্ষ্যে শিক্ষক কর্তৃক (খবংংড়হ চষধহ) রীতি অনুসরণ করা হয়। শিখনে শিক্ষার্থীদের আগ্রহ সৃষ্টি ও পাঠকে সহজ করার জন্য রঙিন  চিত্রের মাধ্যমে পাঠদান রীতি অবলম্বন করা হয়। সুন্দর হাতের লেখা শিক্ষার্থীর মাঝে সৌন্দর্য-চেতনা বৃদ্ধি করে। তাই হাতের লেখা শেখানোর ব্যাপারে গতানুগতিক ব্যবস্থা বর্জন করে আধুনিক ও মনোবিজ্ঞান সম্মত পদ্ধতি গ্রহণ। প্রতিটি বর্ণের সঠিক ও কঠিন রেখাবিন্যাস শ্রেণি, চাহিদা, বয়স ও মেধা অনুসারে অনুশীলন করার তাগিদ প্রদান করা হয়। শিক্ষার্থীর মেধা, শিষ্টাচার, উত্তম আচরণ, নিয়মিত উপস্থিতি, পরীক্ষার ফলাফল, সহশিক্ষা কার্যক্রম ও অন্যান্য বিষয় বিবেচনা পূর্বক পুরস্কার প্রদানের মাধ্যমে ছাত্র-ছাত্রীদের মেধার স্বীকৃতি ও উৎসাহ প্রদান করা হয়। শিক্ষার্থীর গর্হিত আচরণ এবং কোনো কোনো ক্ষেত্রে অভিভাবকের অনুচিত হস্তক্ষেপের কারণে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পরিবেশ দূষণের আশংকা দেখা দিলে সেই ধরণের শিক্ষার্থীকে ছাড়পত্র দেওয়া হয়। সে ক্ষেত্রে কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্তই চূড়ান্ত বলে গণ্য হয়।